ডেসটিনির শীর্ষ কর্মকর্তাদের নিঃশর্ত মুক্তির দাবি লাখ লাখ ডিস্ট্রিবিউটরের

ডেসটিনি ডেস্ক

ডেসটিনি গ্রুপের প্রেসিডেন্ট সাবেক সেনাপ্রধান লে. জেনারেল হারুন-অর- রশিদ বীরপ্রতীক, চেয়ারম্যান মোহাম্মদ রফিকুল আমীন ও ডেসটিনি-২০০০ লিঃ-এর চেয়ারম্যান আলহাজ মোহাম্মদ হোসাইনকে দুদকের মামলায় গ্রেফতারের ঘটনায় প্রতিবাদ জানিয়ে গতকাল খুলনা, রংপুর, বরিশাল, সিলেটসহ বিভিন জেলায় ডেসটিনির ডিস্ট্রিবিউটররা ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। তারা অবিলম্বে ডেসটিনি গ্রুপের তিন শীর্ষ কর্মকর্তার মুক্তি ও ষড়যন্ত্রমূলক মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছেন।
খুলনা ব্যুরো জানায়, ষড়যন্ত্রমূলক মামলায় ডেসটিনি গ্রুপের প্রেসিডেন্ট সাবেক সেনাপ্রধান বীর মুক্তিযোদ্ধা লে. জেনারেল হারুন-অর-রশিদ বীরপ্রতীক, গ্রুপের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ রফিকুল আমীন ও ডেসটিনি-২০০০ লিঃ-এর চেয়ারম্যান আলহাজ মোহাম্মদ হোসাইনকে গ্রেফতারের ঘটনায় খুলনায় ক্ষোভে ফুঁসে উঠেছেন ডেসটিনির কয়েক লাখ ডিস্ট্রিবিউটর। তারা বলেছেন, অভিযোগ তদন্তাধীন, দুর্নীতির প্রমাণ মেলেনি, এমনকি কোনো অভিযোগও নেই ডেসটিনির সাধারণ ডিস্ট্রিবিউটরদের; অথচ মহলবিশেষের ইন্ধনে ডেসটিনির মতো দেশের
দারিদ্র্যবিমোচন ও কর্মসংস্থান সৃষ্টিকারী সফল একটি প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে একের পর এক ষড়যন্ত্র চলছে। এরই ধারাবাহিকতায় তদন্ত শেষ না হতেই তড়িঘড়ি করে দায়ের হয়েছে দুটি মিথ্যা মামলা। গ্রেফতার করা হয়েছে তিন শীর্ষ কর্মকর্তাকে। সাধারণ ডিস্ট্রিবিউটররা এটি কোনোভাবেই মেনে নিতে পারছেন না। তারা বলেছেন, অবিলম্বে তাদের মুক্তিসহ ষড়যন্ত্রমূলক মামলা প্রত্যাহার করতে হবে।
ডেসটিনির কয়েকজন ডিস্ট্রিবিউটর ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়ায় বলেন, কেউই আইনের ঊধর্ে্ব নয়; কিন্তু আইন তো মানুষের জন্য। আইনের অপব্যবহারও মেনে নেওয়া যায় না। আমরা আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। আইনি প্রক্রিয়ায় আমরা এর জবাব দেব। তারা আরো বলেন, মহলবিশেষ চাইছে, এ ধরনের ঘটনা ঘটিয়ে ডেসটিনির পরিবেশকদের সহিংসতার দিকে ঠেলে দিতে; কিন্তু আমরা তাদের ফাঁদে পা দেব না। প্রতিষ্ঠানের পরিচালনা পর্ষদ, ব্যবস্থাপনা পর্ষদের প্রতি আমাদের পূর্ণ বিশ্বাস ও আনুগত্য রয়েছে। অতীতে যেমন আমরা কাজের মাধ্যমে ষড়যন্ত্রকারীদের জবাব দিয়েছি, ভবিষ্যতেও দেব। আমাদের লক্ষ্য অর্জন থেকে আমরা পিছু হঠব না।
ডেসটিনির এক প্রফিট শেয়ার ডিস্ট্রিবিউটর (পিএসডি) জানান, একটি শক্তিশালী মহলের রোষানলে পড়েছে ডেসটিনি। তাই এর ওপর দিয়ে এত ঝড়-ঝাপ্টা বয়ে যাচ্ছে। প্রতারণামূলক প্রতিষ্ঠান হলে দীর্ঘ ১২ বছর ধরে ডেসটিনি কাজ করে যেতে পারত না। দেশে আইন-আদালত ও আইন প্রয়োগকারী সংস্থা রয়েছে। ডেসটিনি যদি অনিয়ম-দুর্নীতি করত তবে নিশ্চয়ই তা তাদের নজরে আসত। আর এ পর্যন্ত ডেসটিনির কোনো পরিবেশক কোথাও অভিযোগ করেননি। সুতরাং স্পষ্টভাবে বোঝা যাচ্ছে, ডেসটিনির বিরুদ্ধে সুগভীর ষড়যন্ত্র চলছে। ডেসটিনির শীর্ষ কর্মকর্তাদের গ্রেফতার ও জেলহাজতে পাঠানোয় ডেসটিনির পরিবেশকদের মনোবল বিন্দুমাত্র ভাঙবে না বরং তারা নতুন উদ্যমে কাজ করবেন। ডেসটিনির পরিবেশকরা অবিলম্বে এই মামলা প্রত্যাহার ও গ্রেফতারকৃত কর্মকর্তাদের নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করেছেন।
রংপুর ব্যুরো জানায়, রংপুরে প্রতিবাদ সভায় বক্তারা বলেছেন, ডেসটিনি গ্রুপের প্রেসিডেন্ট লে. জেনারেল হারুন-অর-রশিদ বীরপ্রতীক (অব.), চেয়ারম্যান মোহাম্মদ রফিকুল আমীন ও ডেসটিনি-২০০০ লিঃ-এর চেয়ারম্যান আলহাজ মোহাম্মদ হোসাইনসহ সব কর্মকর্তা নির্দোষ। তারা কোনো আইন লঙ্ঘন করেননি। তাদের মুক্তি দিয়ে ৪৫ লাখ পরিবারের রুটি-রুজির পথ প্রশস্ত করে দিন। গতকাল বৃহস্পতিবার আদালত ডেসটিনির তিন শীর্ষ কর্মকর্তার জামিন নামঞ্জুর করলে ডেসটিনি-২০০০ লিঃ-এর রংপুর জোনাল অফিসে এক প্রতিবাদ সমাবেশে ডেসটিনির ডিস্ট্রিবিউটররা এই আকুতি জানান।
বক্তারা বলেন, আমরা ডেসটিনির মাধ্যমে প্রতারিত বা ক্ষতিগ্রস্ত হইনি। মিথ্যা অভিযোগের ভিক্তিতে এই প্রতিষ্ঠানকে হয়রানি করা হচ্ছে। বক্তারা ডেসটিনি গ্রুপের কর্মকর্তাদের মুক্তি দাবি করে বলেন, ডেসটিনির সব ব্যাংক অ্যাকাউন্ট খুলে দিয়ে ৪৫ লাখ পরিবারকে ধ্বংসের হাত থেকে রক্ষা করুন। তারা বলেন, ডেসটিনি গত এক যুগ ধরে স্বচ্ছতার সঙ্গে ব্যবসা করছে। একটি মহলের দুরভিসদ্ধির কারণে প্রতিষ্ঠানটি নিয়ে চক্রান্ত শুরু হয়েছে। আমাদের কর্মকর্তাদের মুক্তি দিয়ে চলার পথকে সুগম করে দিন। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন রংপুর অফিসের এজিএম সায়েদুর রহমান, দৈনিক ডেসটিনির রংপুর বুরো প্রধান নজরুল মৃধা, ডায়মন্ড এক্সিকিউটিভ সৈয়দ আহমেদ, ট্রিপল পিএসডি মফিজুল ইসলাম তাজু, মোখলেছুর রহমান রাজু, আজম আলী, এম জি এম মনির, জিয়ারুল হক জিয়া, শামসুল আনোয়ারী, জাহাঙ্গীর আলম, মোখতার আহমেদ, মিজানুর রহমান কাঁকন, শামসুল হক, মোশাররফ হোসেন, তাফাখখারুল হক ময়না প্রমুখ।
বরিশাল ব্যুরো জানায়, ডেসটিনি গ্রুপের প্রেসিডেন্ট লে. জেনারেল হারুন-অর-রশিদ বীরপ্রতীক (অব.), চেয়ারম্যান মোহাম্মদ রফিকুল আমীন ও ডেসটিনি-২০০০ লিঃ-এর চেয়ারম্যান মোহাম্মদ হোসাইনকে দুদকের দায়ের করা মিথ্যা মামলায় জামিন বাতিল করায় ডেসটিনির বরিশাল বিভাগীয় অফিসের সেমিনার কক্ষে গতকাল এক প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন বরিশাল বিভাগীয় ডিডিও আমিনুল ইসলাম তুহিন, বিশেষ অতিথি ছিলেন দৈনিক ডেসটিনির বরিশাল ব্যুরো প্রধান কাজী মো. জাহাঙ্গীর, পিএসডি হাফেজ সেলিম। পিএসডি হুমায়ুন কবিরের সভাপতিত্বে প্রতিবাদ সভায় সহস্রাধিক ডিস্ট্রিবিউটর উপস্থিত ছিলেন। এ সময় বক্তারা অবিলম্বে ডেসটিনির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে দায়ের করা মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারসহ তাদের মুক্তির দাবি জানান। অন্যথায় দুর্বার আন্দোলন গড়ে তোলা হবে।
সিলেট ব্যুরো জানায়, ডেসটিনির প্রেসিডেন্ট সাবেক সেনাপ্রধান লে. জেনারেল হারুন-অর-রশিদ বীরপ্রতীক, চেয়ারম্যান মোহাম্মদ রফিকুল আমীন ও ডেসটিনি-২০০০ লিঃ-এর চেয়ারম্যান আলহাজ মোহাম্মদ হোসাইনকে গ্রেফতারের ঘটনায় সিলেটে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন ডিস্ট্রিবিউটররা।
ডেসটিনির কয়েকজন পিএসডি জানান, আমরা বিশ্বাস করি আমাদের বিজয় একদিন হবেই। সেদিন বেশি দূরে নয়, আজকে যে বিশেষ মহল আমাদের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালাচ্ছে; তারাই আমাদের পতাকাতলে এসে এই সোনার বাংলাকে বেকারমুক্ত করতে এগিয়ে আসবে। তারা বলেন, আমাদের পথিকৃৎ মোহাম্মদ রফিকুল আমীন ধৈর্য ধারণের প্রশিক্ষণ দিয়েছেন। ডেসটিনি প্রতারণামূলক প্রতিষ্ঠান নয়। ডেসটিনির শীর্ষ তিন কর্মকর্তাকে গ্রেফতার করায় আমাদের মনোবল ভাঙবে না, বরং নতুন উদ্যমে কাজ করব। ডেসটিনির বিরুদ্ধে সব মিথ্যা ও হয়রানিমূলক মামলা প্রত্যাহারসহ গ্রেফতার করা কর্মকর্তাদের নিঃশর্ত মুক্তির দাবি করেছেন সিলেটের সর্বস্তরের ডিস্ট্রিবিউটররা।

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s