হারুন-অর-রশিদের হাইকোর্টে জামিনের শুনানি রোববার নূ্যনতম অসুস্থ হলে হাসপাতালে পাঠানোর নিশ্চয়তা অ্যাটর্নি জেনারেলের

ডেসটিনি রিপোর্ট
ডেসটিনি গ্রুপের প্রেসিডেন্ট সাবেক সেনাপ্রধান লেফটেন্যান্ট জেনারেল হারুন-অর-রশিদ বীরপ্রতীক নূ্যনতম অসুস্থ হলে তাকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) পাঠানো হবে। রাষ্ট্রের প্রধান আইন কর্মকর্তা অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম হাইকোর্টকে এমনই নিশ্চয়তা দিয়েছেন। দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) দায়ের করা দুটি মামলায় হারুন-অর-রশিদের করা জামিন আবেদন শুনানির বিরোধিতার একপর্যায়ে তিনি আদালতকে এ নিশ্চয়তা দেন।
গতকাল সকালে নিম্ন আদালত হারুন-অর-রশিদের জামিন আবেদন খারিজ করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেয়। পরে হাইকোর্টে জামিনের আবেদন করা হয়।
একইসঙ্গে হারুন-অর-রশিদের চিকিৎসার জন্য বিএসএমএমইউ হাসপাতালে পাঠানোর আবেদন করা হয়। রাষ্ট্রপক্ষের বিরোধিতার মুখে আগামী রোববার শুনানির দিন ঠিক করেছে আদালত। বিচারপতি এ এইচ এম শামসুদ্দিন চৌধুরী ও বিচারপতি ফরিদ আহমেদের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ গতকাল বৃহস্পতিবার এদিন ধার্য করে। হারুন-অর-রশিদের পক্ষে সুপ্রিমকোর্টের আইনজীবী সাবেক আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আব্দুল মতিন খসরু আদালতে উপস্থিত ছিলেন।
আদালতে আব্দুল মতিন খসরু বলেন, ‘হারুন-অর-রশিদ সাবেক সেনাপ্রধান। তিনি মহান মুক্তিযুদ্ধের সেক্টর কমান্ডার। তিনি গুরুতর অসুস্থ। হার্টের সমস্যায় ভুগছেন। তাকে জামিন দেওয়া বা না দেওয়ার এখতিয়ার আদালতের আছে। তবে তাকে হাসপাতালে পাঠানোর আবেদন করছি।’
আদালত তাকে হাসপাতালে পাঠানোর আদেশ দিতে গেলে বিরোধিতা করেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। তিনি বলেন, ‘তিনি তো (হারুন-অর-রশিদ) এখনো কারাগারে যাননি। কারাগারে গেলে তার স্বাস্থ্য পরীক্ষা করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে আইজি প্রিজনকে বলব।’
তিনি বলেন, হারুন-অর-রশিদের অসুস্থতার সমর্থনে কোনো কাগজপত্র নেই। ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে জামিন আবেদনের শুনানিতে অসুস্থতা সম্পর্কে কোনো কিছু বলেননি। এ মুহূর্তে তাকে জামিন দেওয়ার সুযোগ নেই।
এ সময় আদালত বলে, ডেসটিনির প্রতি আমাদের নূ্যনতম সহানুভূতি নেই। অর্থ কেলেঙ্কারির ঘটনা ছোট করে দেখার সুযোগ নেই। তবে তিনি একজন সাবেক সেনাপ্রধান ও সেক্টর কমান্ডার। তিনি সম্মানিত ব্যক্তি। এর আগেও তো হাসপাতালে পাঠানোর ঘটনা আছে। তাছাড়া আব্দুল মতিন খসরুর কথা কি বিশ্বাসযোগ্য নয়? তার কিছু হলে আপনি বা আমরা দায়ী হব।
জবাবে অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, নিয়ম অনুযায়ী যা করার সব হবে। কারা কর্তৃপক্ষই এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেবে। হারুন-অর-রশিদ ডেসটিনি থেকে মাসে ১০ লাখ টাকা বেতন নেন। তিনি সেক্টর কমান্ডারস ফোরাম থেকে পদত্যাগ করেছেন। তিনি ডেসটিনি ছাড়তে পারবেন না।
জবাবে মতিন খসরু বলেন, ডেসটিনির সঙ্গে তার কোনো সম্পর্ক নেই। তিনি একজন কর্মচারী। চাকরিজীবী। পরিচালনা পরিষদই ডেসটিনি পরিচালনা করে থাকে। হারুন-অর-রশিদ ডেসটিনির প্রেসিডেন্ট। এই প্রেসিডেন্ট পদ আলঙ্কারিক।
এরপর আদালত জামিন আবেদনের ওপর রোববার শুনানির দিন ধার্য করে। তবে হারুন-অর-রশিদকে হাসপাতালে পাঠানোর বিষয়টি অ্যাটর্নি জেনারেলকে স্মরণ করিয়ে দিয়ে আদালত বলে, আপনি আদালতকে আশ্বস্ত করেছেন, নূ্যনতম অসুস্থ হলেই তাকে হাসপাতালে পাঠাবেন।
এর আগে গতকাল সকালে ডেসটিনি গ্রুপের প্রেসিডেন্ট সাবেক সেনাপ্রধান লে. জেনারেল হারুন-অর-রশিদ, ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ রফিকুল আমীন ও চেয়ারম্যান মোহাম্মদ হোসেনকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেয় আদালত।
গত ২৭ সেপ্টেম্বর হারুন-অর-রশিদ, রফিকুল আমীন ও মোহাম্মদ হোসাইনসহ ডেসটিনির শীর্ষ ২১ কর্মকর্তাকে ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের দেওয়া জামিন বাতিল করে মহানগর দায়রা জজ আদালত। দুদকের উপপরিচালক মো. মোজাহার আলী সরদার ও সহকারী পরিচালক মো. তৌফিকুল ইসলাম গত ৩১ জুলাই অর্থ পাচারের (মানিলন্ডারিং) অভিযোগে দুটি মামলা দায়ের করেন।

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s