সিলেটে ডিস্ট্রিবিউটর ফোরামের সভা; ডেসটিনিতে প্রশাসক নিয়োগ বন্ধের দাবি

সিলেটে ডিস্ট্রিবিউটর ফোরামের সভা
ডেসটিনিতে প্রশাসক নিয়োগ বন্ধের দাবি

সিলেট ব্যুরো
সিলেটে ডেসটিনি ডিস্ট্রিবিউটর ফোরামের (ডিডিএফ) উদ্যোগে গত রোববার আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। নগরীর চৌহাট্টায় মানরু শপিং সিটিতে ডিএসটিসির হলরুমে আয়োজিত সভায় বক্তারা এমএলএম খসড়া নীতিমালা প্রণয়নের জন্য বর্তমান সরকারসহ প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানান। তারা বলেন, পূর্ণাঙ্গ নীতিমালার আলোকে আমরা সঠিকভাবে এই ব্যবসা করতে চাই। ডেসটিনির ৪৫ লাখ ডিস্ট্রিবিউটরের একটাই লক্ষ্য সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে এই ব্যবসা করা। তারা বলেন, সরকার প্রশাসক নিয়োগ দিয়ে ডেসটিনির ব্যবসা পরিচালনা করতে চাইছে; আমরা সে উদ্যোগকে সাধুবাদ জানাই। সেই সঙ্গে অন্য একটি প্রশ্ন রাখছি_ শুধু প্রশাসক দিয়ে ডেসটিনির ব্যবসা সঠিকভাবে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া কখনো সম্ভব নয়। তাই ডেসটিনিতে প্রশাসক নিয়োগ বন্ধের দাবি জানিয়েছেন সিলেট ডিডিএফের নেতারা। ডেসটিনিতে প্রশাসক নিয়োগের আগে প্রয়োজনে ৪৫ লাখ ডিস্ট্রিবিউটরের মধ্যে জরিপ চালানোর আহ্বান জানান তারা।
ফোরাম নেতারা ডেসটিনি গ্রুপের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ রফিকুল আমীনসহ সব পরিচালকের নামে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার, তাদের শর্তহীন মুক্তি এবং প্রতিষ্ঠানের সব ব্যাংক হিসাব খুলে দেওয়ারও দাবি জানান। তারা বলেন, কাজ করে এই প্রতিষ্ঠানে কোনো ক্রেতা-পরিবেশক ক্ষতিগ্রস্ত হননি। এ পর্যন্ত দেশের কোথায়ও কোনো অভিযোগ করেননি একজন ডিস্ট্রিবিউটরও। মোহাম্মদ রফিকুল আমীন স্বপ্ন দেখেছিলেন এ দেশের এক কোটি লোককে বেকারমুক্ত করার_ এটাই কি তার অপরাধ? ডেসটিনি দীর্ঘ ১২ বছর ধরে ব্যবসা পরিচালনা করে আসছে তা এমএলএম নামে পরিচিত। এর পক্ষে-বিপক্ষে নানা যুক্তিতর্ক থাকলেও বিশ্বের বিভিন্ন দেশে এই ব্যবসা বিদ্যমান রয়েছে। তারা বলেন, ডেসটিনি কর্তৃপক্ষ শুরু থেকেই নীতিমালা করার জন্য আহ্বান জানিয়ে আসছে।
প্রফেসর হেলালের উপস্থাপনায় আলোচনায় অংশ নেন পিএসডি আব্দুস সালাম, পিএসডি আব্দুল গনি খান, দৈনিক ডেসটিনির সিলেট ব্যুরো প্রধান বদরউদ্দিন আহমদ, পিএসডি হুমায়ুন কবীর, পিএসডি শামীম আহমদ, পিএসডি ঋতু দেব, পিএসডি সুরত লাল দাস, পিএসডি বিষ্ণু পদ দে, পিএসডি আব্দুর রাজ্জাক, পিএসডি গোলাম রব্বানী প্রমুখ। বক্তারা আরো বলেন, ডেসটিনি গ্রুপের বিরুদ্ধে উদ্দেশ্যমূলক ষড়যন্ত্র চলছে। দেশের ৪৫ লাখ লোককে বেকার ও অস্থিতিশীল অবস্থা তৈরি করে সরকারকে অসুবিধায় ফেলতে একটি মহল কাজ করছে। ডেসটিনিতে কাজ করে সিলেট অঞ্চলসহ দেশের প্রায় এক লাখ লোক কর্মসংস্থান সৃষ্টি করেছেন। প্রায় সাত মাস যাবৎ প্রতিষ্ঠানটির ব্যাংক অ্যাকাউন্ট বন্ধ থাকায় কোনো প্রকার বেতনভাতা, কমিশন কিছুই না পেয়ে এ বিপুলসংখ্যক লোক মানবেতর জীবনযাপন করছেন। বক্তারা প্রধানমন্ত্রীর কাছে অনুরোধ করেন অতিসত্বর কোম্পানির ব্যাংক অ্যাকাউন্টগুলো সচল করে দেওয়ার জন্য। তারা বলেন, আমরা আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই আমরা মনে করি সরকার তথা প্রধানমন্ত্রী এসব বিষয় দ্রুত সমাধান করে আমাদের মানবেতর জীবনযাপন থেকে মুক্তি দিতে এগিয়ে আসবেন।

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s